ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর নির্দেশ, অবরোধ পশ্চিমের

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রিত দুই অঞ্চল দোনেত্স্ক ও লুহানস্ককে ‘স্বাধীনতার স্বীকৃতি’ দেওয়ার পর রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সেখানে সেনা পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। রয়টার্স বলেছে, গত সোমবার রাতের ওই নির্দেশের পর দোনেত্স্ক শহরে রাশিয়ার ট্যাংক ও সামরিক বহর ঢুকতে দেখা গেছে। তবে গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় দিবাগত মধ্যরাতের পরও বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, রুশ সেনারা তখন পর্যন্ত সেখানে প্রবেশ করেছে কি না তা স্পষ্ট নয়। যদিও এএফপির খবর অনুযায়ী পুতিন বলেছেন, মাঠের পরিস্থিতির ওপর ইউক্রেনে তাঁর সেনা পাঠানোর সিদ্ধান্তটি নির্ভর করবে।

সোমবার ওই দুটি অঞ্চলকে স্বীকৃতি এবং পুতিনের ওই নির্দেশের প্রতিক্রিয়ায় রাশিয়ার ওপর একের পর এক অবরোধের ঘোষণা দিতে শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা মিত্ররা। ওই দিন যুক্তরাষ্ট্র দোনেত্স্ক ও লুহানস্কের ওপর অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ করে। পাশাপাশি শিগগিরই রাশিয়ার ওপর অবরোধের ঘোষণা হবে বলে জানায় তারা।

জার্মানি গতকাল মঙ্গলবার বহুল আলোচিত রাশিয়ার গ্যাস সরবরাহের নর্ড স্ট্রিম ২ পাইপলাইন প্রকল্প স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছে। এই ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ওই প্রকল্পটি এখনো চালু হয়নি। নর্ড স্ট্রিম ১ প্রকল্পটি চালু রয়েছে। জার্মানির এ পদক্ষেপের ফলে রাশিয়া গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। এ প্রেক্ষাপটে কাতারের জ্বালানিমন্ত্রী বলেছেন, তাঁরা একা ইউরোপকে উদ্ধার করতে পারবেন। তাঁর দেশ জ্বালানি সরবরাহে ইউরোপকে যতটা সম্ভব সাহায্য করবে। তবে ইউরোপের গ্রাহকদের যে মূল্য দিতে হবে, তা ‘ঈশ্বরের হাতে’।

যুক্তরাজ্য গতকাল রাশিয়ার পাঁচটি ব্যাংক এবং তিন ধনকুবেরের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে, যাকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন রুশ প্রেসিডেন্টের নির্দেশের প্রতিক্রিয়ার প্রথম পদক্ষেপ বলে অভিহিত করেছেন।

মস্কো সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদী নিয়ন্ত্রিত পূর্ব ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর নির্দেশ দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে ভাষণে জনসন একে ‘পূর্ণ মাত্রার আক্রমণের’ পদক্ষেপ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। বরিস জনসন বলেন, ক্রেমলিন যদি আরো অগ্রসর হয়, তবে আরো নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

ক্রেমলিন জানিয়েছে, পূর্ব ইউক্রেনের ওই দুটি অঞ্চলে তাদের বাহিনী ‘শান্তি রক্ষায়’ দায়িত্ব পালন করবে, যাকে ‘ফালতু কথা’ বলে উল্লেখ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

নর্ড স্ট্রিম ২ পাইপলাইন প্রকল্প স্থগিত : জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শোলজ বলেছেন, ইউক্রেনের লুহানস্ক ও দোনেত্স্ক অঞ্চলকে স্বাধীন হিসেবে মস্কো স্বীকৃতি দেওয়ার প্রতিক্রিয়ায় তিনি রাশিয়ার সঙ্গে নর্ড স্ট্রিম ২ পাইপলাইন প্রকল্প স্থগিত করেছেন। শোলজ বলেন, ওই পাইপলাইনের জার্মান নিয়ন্ত্রক দ্বারা পর্যালোচনাপ্রক্রিয়া স্থগিত করার নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি বলেছেন, এটি একটিমাত্র পদক্ষেপ। ভবিষ্যতে রাশিয়ার কর্মকাণ্ডের ওপর ভিত্তি করে অবরোধের আরো পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মন্ত্রীরা রাশিয়ার ওপর অবরোধ আরোপের জন্য গতকাল রাতে বৈঠকে বসেন।

ইউক্রেনের সঙ্গে রাশিয়ার ক্রমবর্ধমান অচলাবস্থার প্রেক্ষাপটে পশ্চিমা অংশীদাররা নর্ড স্ট্রিম ২ প্রকল্পটিকে দর-কষাকষির জন্য গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন। এই প্রকল্পটি বার্লিনের সঙ্গে তার মিত্রদের দীর্ঘকাল ধরে উত্তেজনার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। জার্মানির মিত্রদের যুক্তি, এটি রাশিয়ার ওপর জার্মানির জ্বালানিনির্ভরতা বাড়িয়ে দেবে, যা মস্কোকে খুব বেশি সুবিধা দেবে। জার্মানির এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। যুক্তরাষ্ট্র গতকাল বলেছে, পূর্ব ইউক্রেনে রাশিয়ার অগ্রসর হওয়ার বিষয়টি আক্রমণের ‘সূত্রপাত’ এবং শিগগিরই তারা ‘কঠোর অবরোধ’ ঘোষণা করতে যাচ্ছে।

এর আগে ইউক্রেনের নেতা ভলোদিমির জেলেনস্কি পশ্চিমের কাছে রাশিয়ার বিরুদ্ধে দ্রুত অর্থনৈতিক অন্যান্য শাস্তিমূলক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করার পাশাপাশি নর্ড স্ট্রিম ২ প্রকল্প অবিলম্বে বন্ধ করার দাবি জানিয়েছিলেন। তিনি পুতিনের দোনেত্স্ক ও লুহানস্ক অঞ্চলকে স্বাধীনতার স্বীকৃতি দেওয়ার বিষয়টিকে ‘ইউক্রেনের বিরুদ্ধে পরিকল্পিত সামরিক আগ্রাসনের’ প্রথম পদক্ষেপ বলে অভিহিত করেন।

এদিকে প্রধান গ্যাস রপ্তানিকারক দেশগুলো গতকাল বলেছে, তারা যে শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজন করেছিল, সেখানে গ্যাসের দাম ও সরবরাহের বিষয়ে কোনো নিশ্চয়তা দিতে পারেনি। ইউরোপে রাশিয়ার গ্যাস সরবরাহের নর্ড স্ট্রিম ২ পাইপলাইন প্রকল্প বন্ধ করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে জার্মানি। এতে রাশিয়া থেকে সরবরাহ নিয়ে আশঙ্কা আরো বেড়ে গেছে। এ প্রেক্ষাপটে গ্যাস রপ্তানিকারক দেশগুলো এ কথা জানাল। কাতারের আমির ওই সম্মেলনের আয়োজন করেন। তিনি বলেছেন, গ্যাস উৎপাদনকারীরা ‘বিশ্বাসযোগ্য ও নির্ভরযোগ্য’ সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য কাজ করছে। উপসাগরীয় ওই দেশটির জ্বালানিমন্ত্রী বলেন, তাঁর দেশ ইউরোপকে যতটা সম্ভব সাহায্য করবে। তবে ইউরোপের গ্রাহকদের যে মূল্য দিতে হবে, তা ‘ঈশ্বরের হাতে’।

ভ্লাদিমির পুতিন আনুষ্ঠানিকভাবে পূর্ব ইউক্রেনের লুহানস্ক ও দোনেত্স্ককে স্বাধীন হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার পর ১১ সদস্যের গ্যাস রপ্তানিকারক দেশের ফোরামের নেতা ও মন্ত্রীরা মিলিত হন। ওই ফোরামের প্রধান সদস্য রাশিয়া। ওই সম্মেলনে আলোচনায় ইউক্রেন সংকটের বিষয়টি উল্লেখ করা হয়নি। রাশিয়ার জ্বালানিমন্ত্রী নিকোলাই শুলগিনভ উত্তেজনার কোনো উল্লেখ করেননি। তবে তিনি ফোরামকে বলেছিলেন, রাশিয়ার কম্পানিগুলো গ্যাস সরবরাহের জন্য বিদ্যমান চুক্তিতে ‘সম্পূর্ণরূপে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ’।

ওএসসিইর বিশেষ বৈঠক : ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের দুটি বিচ্ছিন্ন অঞ্চলকে স্বাধীন হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার পর নিরাপত্তা সংস্থা অর্গানাইজেশন ফর সিকিউরিটি অ্যান্ড কো-অপারেশন ইন ইউরোপ (ওএসসিই) গতকাল বিশেষ বৈঠকে বসে। এই সংস্থায় রাশিয়া, ইউক্রেন, যুক্তরাষ্ট্রসহ ৫৭ সদস্য রয়েছে।

সব কূটনৈতিক দরজা খোলা রেখেছে রাশিয়া : ক্রেমলিন বলেছে, তারা সব কূটনৈতিক যোগাযোগ খোলা রেখেছে। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সাংবাদিকদের বলেন, ‘রাশিয়ার পক্ষ থেকে সব স্তরের কূটনৈতিক যোগাযোগ খোলা রাখা হয়েছে। …সব কিছু নির্ভর করছে আমাদের বিরোধীদের ওপর। ’ মস্কোর সঙ্গে কিয়েভের আনুষ্ঠানিক সম্পর্ক ছিন্ন করার পদক্ষেপ ‘অত্যন্ত অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি সৃষ্টি করবে, সব কিছু আরো কঠিন করে তুলবে’ বলে সতর্ক করে দেন তিনি।

ইউক্রেনে কাজ চালিয়ে যাবে জাতিসংঘ : জাতিসংঘ গতকাল বলেছে, রাশিয়ার সম্ভাব্য হামলার আশঙ্কার মধ্যে সংস্থাটি তার কিছু কর্মী ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের ইউক্রেনের অন্য জায়গায় স্থানান্তর করছে। সংস্থাটি বলেছে, তারা ইউক্রেনে কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার বিষয়ে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। জাতিসংঘের মুখপাত্র আলেসান্দ্রা ভেলুচি জেনেভায় সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা সম্পূর্ণরূপে কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। আমরা কিছু কর্মী ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের অস্থায়ীভাবে স্থানান্তরের অনুমতি দিয়েছি। ’ তিনি জানান, ইউক্রেনে জাতিসংঘের এক হাজার ৫১০ জন কর্মী রয়েছেন। এর মধ্যে ১৪৯ জন আন্তর্জাতিক কর্মী। সূত্র : সিএনএন, এএফপি, বিবিসি

Education Template

AllEscort